GoomZoom
Nonstop Entertainment

ডোনার সঙ্গে কলকাতার নামি দোকানে শাড়ি কিনতে গিয়ে বিপদে পড়লেন সৌরভ গাঙ্গুলী! ঘটনা শেয়ার করতে গিয়ে লজ্জায় লাল মহারাজ

এখন সমস্ত ধারাবাহিক আর রিয়্যালিটি শোকে পিছনে ফেলে জনপ্রিয়তার শীর্ষে দাদাগিরির চলতি সিজন। করোনার কারণে মধ্যিখানে বিরতিতে ছিল দাদার দাদাগিরি। এবারে দর্শকদের মন জয় করতে নতুন ভাবে জি বাংলায় সম্প্রচারিত হচ্ছে দাদাগিরি। পুজোর আগেই শুরু হয়েছে জনপ্রিয় এই শো। মাঝেমধ্যে তারকাদের সমাবেশও ঘটছে দাদার এই অনুষ্ঠানে।

খেলার মাঝেই প্রতিযোগীদের সঙ্গে দিচ্ছেন জমিয়ে আড্ডা। এরই মধ্যে স্ত্রী ও বিখ্যাত নৃত্যশিল্পী ডোনা গাঙ্গুলীকে নিয়ে একটি মজার অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে দেখা গেল সৌরভ গাঙ্গুলীকে। যা শুনে হেসে গড়াগড়ি খেয়েছে দর্শকেরা। কিন্তু দাদার কাছে তা ছিল বড়ই লজ্জার বিষয়। কী এমন ঘটেছিল সৌরভ গাঙ্গুলির সঙ্গে?

আদতে মহিলাদের কেনাকাটা নিয়ে ভালোবাসা বরাবরের। তা নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। যার জন্য শপিংয়ের সঙ্গে থাকা পুরুষরা মাঝে মাঝে বিব্রতবোধ করেন। এমনকি অস্বস্তিতেও পরে যান। তা অনেকেই দাবি করে থাকেন। সেই একই কথা বলতে দেখা গেল মহারাজকেও। এদিন সৌরভ গাঙ্গুলী জানান, বেশ কিছুদিন বাইরে থাকার পর সদ্য কলকাতায় এসেছেন। তাই ডোনা গাঙ্গুলীকে শাড়ি কিনতে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু তাতেই বিপদে পড়লেন দাদা।

দাদা জানালেন, “কলকাতার বেশ বড় দোকানে আমরা গিয়েছিলাম। ম্যাডাম ৩০ মিনিট ধরে শাড়ি দেখে গেছেন। আর আমি পাশে দাঁড়িয়ে। হঠাৎ আমার কানের সামনে মুখ এনে বলল, ‘একটা শাড়ি ও পছন্দ হচ্ছে না!’ আমি পাশে তাকিয়ে দেখি ইতিমধ্যেই শাড়ির স্তুপ জমা হয়ে গিয়েছে। আমি তখন ভাবছি এবার কি করবো। যে কোনও দুটো শাড়ি তুলে নিয়ে দোকানিকে বললাম, ‘এই দুটো প্যাক করে দিন’। আমার মাথায় ঘুরছিল এত দেখার পর যদি শাড়ি না কিনে বেরিয়ে আসি, আর কোনওদিন দোকানে ঢুকতে দেবে না। বাইরে এসে বলেছিলাম, যাকে ইচ্ছে এই দুটো দিয়ে দিও বা রেখে দিও।”

দাদার এই কথা শুনে হেসে লুটোপুটি খেয়েছেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল প্রতিযোগীরা। তবে পুরো বিষয়টি লজ্জার ছিল দাদার কাছে। দাদাগিরির নবম সিজনের মূলমন্ত্র হচ্ছে, “হাত বাড়ালেই বন্ধু হওয়া যায়”। এবারে দাদাগিরির এই সিজনে এসেছে কিছু বদল। এবারের কুইজ শোর রাউন্ডের নিয়মেও এসেছে কিছু পরিবর্তন। তবে গত প্রত্যেকটি সিজনের মত এই সিজনও দর্শকদের মন লুভিয়েছে।

Comments
Loading...
error: Content is protected !!