GoomZoom
Nonstop Entertainment

পূজার কদিন বাড়িতে চুটিয়ে আনন্দ, জানুন অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরার পূজা প্ল্যানিং

টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরা। একাধিক ছোটপর্দার ধারাবাহিকে অভিনয় করে এই মুহূর্তে যথেষ্ট জনপ্রিয় মুখ।কলকাতায় এখন পূজার মরশুম। সকলেই নিজের মত করে পূজায় মেতেছেন। পূজার চারটে দিন নিজেদের মত করে বন্ধু বান্ধব থেকে প্যান্ডেল হপিং নিয়েই মেতে থাকে গোটা টলিউড। বাদ যায় না অন্বেষা ও।

তবে অভিনেত্রীর নিজের বাড়িতেই পূজা হয়। আর সেই পুজাতেই অংশ নেন তিনি। প্রায় ২৫০ বছর আগের পূজা। যার মধ্যে লুকিয়ে আছে অজানা গল্প। সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী জানান তাদের বাড়ির দুর্গাপুজো ঐতিহাসিক কাহিনী দলিল। অভিনেত্রীর দাদুর বড় পিসির স্বপ্নে মা দুর্গা আবির্ভাব হন। আশ্চর্য হলেও একথা সত্যি তার বয়স মাত্র ছিল ৫ বছর। তিনি ঘুম থেকে উঠেই বলে দিয়েছিলেন এই ভাবে দেবী দুর্গার আরাধনা করা হবে।

বরাবরই বাড়ির পুজো তে মেতে থাকেন অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরা। এই চারটে দিন দেশ-বিদেশের বাইরের সকল পরিবার-পরিজন একত্রে মিলিত হন। তাদের সাথে একসাথে আড্ডা মজা আনন্দ তেই সময় কাটে তার। তাই প্যান্ডেল হপিং কখনোই সেভাবে করা হয়নি। অভিনেত্রীর যদিও এ বিষয়ে কোনো আক্ষেপ নেই।

পূজায় একেবারেই কখনো উপোস করে নিয়ম পালন করেননি কেউই। এমনকি অভিনেত্রী সহ বাড়ির বাকিরা সবসময়ই বড়রা শিখিয়েছেন পূজার সব কাজে অংশ নিলেও উপোস করে করার কোনো প্রয়োজন নেই। একেবারে মা দুর্গাকে ঘরের মেয়ের মতোই পূজা করেন তারা।

পূজার ভোগেও আছে এক অভিনব ছোঁয়া। অভিনেত্রীর কথায় “আমাদের বাড়ীতে নিরামিষ বলি হয়। পুজোয় মাংস কোন পদ আমাদের বাড়িতে থাকে না তবে মাচ হয় যেটা আবার অনেক জায়গাতে হয়না আমাদের মাছটা খুব শুভ মনে করা হয় এছাড়া পনিরের তরকারি কোন পাঁচমিশালী তরকারি, পুজোর চার দিন খাওয়া দাওয়া তো লেগেই থাকে।”

করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই সকলেই নিজেদের মতো করে মেতে উঠেছে পুজোর ছন্দের বাঙালির এক অন্যতম উৎসব যেন নতুন ভাবে মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যাবার বার্তা দিচ্ছে সেই উদ্যোগে সামিল হয়েছেন অভিনেত্রী অন্বেষা হাজরা ও।

Comments
Loading...
error: Content is protected !!