GoomZoom
Nonstop Entertainment

“রাইমা এবারের পুজো তো তোমার!” নুসরাতকে ছেড়ে রাইমার প্রেমে মজে নিখিল জৈন! ছবি দেখে তুমুল জল্পনা নেটপাড়ায়

এখন উৎসবের মরশুমে নতুন নতুন স্টাইল স্টেটমেন্ট নিয়ে হাজির হচ্ছেন টলিউডের জনপ্রিয় তারকারা। এবার নতুন স্টাইল স্টেটমেন্ট নিয়ে হাজির হয়েছেন রাইমা সেন। সোমনাথ রায়ের স্টুডিওতে নতুন রূপে সেজে উঠলেন রাইমা।

তবে এদিকে সেটে তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন দাশু। এদিন দাশুকে কোলে নিয়ে তিনি বললেন, “ওই আমার সব। আমার সঙ্গে সব শুটে ও থাকে। তবে কাউকে বিরক্ত করে না।” এরইমধ্যে শিল্পী নবীন দাস রাইমাকে সাজিয়ে তুললেন অন্যরূপে। তবে বেশিক্ষণ লাগে নি তাতে। অল্প ‘টাচ আপ’-এই বেশ সুন্দর দেখতে লাগছিল এদিন রাইমা সেনকে। আর তাতেই স্বচ্ছন্দ বোধ করেন রাইমাও। জানালেন, পূজোতে শাড়ি তাঁর কেনা হয় না। “মা অবশ্য আমাকে আর রিয়াকে কিছু না কিছু কিনে দেয়। দিদিমা আর মায়ের এত শাড়ি যে, আমরা আর শাড়ি কিনি না।”

হঠাৎ করে এসবের মাঝেই প্রবেশ ঘটলো নায়কের। তবে তিনি তথাকথিত ছবির নায়ক নন। একসময় তাঁকে লোকে জেনে এসেছে নুসরাত জাহানের স্বামী বলে। এখন তিনি অবশ্য নুসরাত জাহানের ‘সহবাস সঙ্গী’ বলে চিহ্নিত সকলের কাছে। কিন্তু এছাড়াও তাঁর আরেকটি পরিচয় আছে। নানা বিতর্কিত বিষয় থেকে এখন নিজেকে দূরে রাখেন। তিনি নিজের বস্ত্র বিপণি নিয়ে এখন মেতে আছেন। গোটা দেশ ঘুরে হারিয়ে যাওয়া কারুকাজ আর কাপড় তুলে আনছেন সকলের সামনে। শরীর চর্চা করছেন। পাশাপাশি নিজের কাজও করে চলেছেন।

এদিন এই ব্যক্তিত্বকে সেটে দেখে গল্পে মশগুল হলেন রাইমা সেন। সাজঘরে ব্যস্ত দুজনে সাজতে। চা ছাড়া দুজনে কিছু খেতে চাইলেন না। নিখিল জৈনের বস্ত্র বিপণি ‘রঙ্গোলি’র পোশাকেই সাজলেন রাইমা সেন। এদিকে দুই বন্ধুর গল্পের মাঝে শুরু হল নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা। তবে একসঙ্গে শুট করতে গিয়ে একটু আরষ্ঠ দেখালো মাঝে নিখিল জৈনকে। কিন্তু পরবর্তীতে তিনি ও সহজ হলেন। এদিন নানা রঙে সেজে উঠলেন নিখিল আর রাইমা। পাশাপাশি তাঁদের মধ্যেকার আলোচনা আর দুজনের হাবভাব দেখে মনে হলো একজন আরেকজনের খুব কাছের।

পাশাপাশি এদিন নিজেদের গল্পের মাঝেই দাশুকে নিয়ে ছবি তুললেন দুই ব্যক্তিত্ব। রাইমাকে বলতে দেখা গেল, “দাশু খুবই বিখ্যাত। ওর ইনস্টা প্রোফাইল পর্যন্ত আছে।” এদিন একই রঙের কুর্তা আর কাপড়ে দেখা গেল দুই ব্যক্তিত্বকে। সঙ্গে গল্পের মাঝে নিখিল জৈন জানালেন, “আগেরবার পুজো বাজে কেটেছিল। এবার প্রত্যেকদিন মজা আড্ডা আর খাওয়া-দাওয়া হবে।” তারই মাঝে রাইমা প্রশ্ন করে বসেন, “তুমি মাংস খাও? পুজোয় পাঁঠার মাংস আমি খাবই।”

এরপরই মাংস,ডিম ভাজা, চিজ, মাশরুম নিয়ে গল্প জমে ওঠে দুই ব্যক্তিত্বের মধ্যে। নিখিলের কাছ দিয়ে আবার সোশ্যাল মিডিয়ার কিছু কারুকার্য শিখে নিলেন রাইমা। অন্যদিকে নিখিলকে বলতে শোনা যায়, “রাইমা এবারের পুজো তো তোমার। চারিদিকে তো তোমারই মুখ।”

Comments
Loading...
error: Content is protected !!